শিরোনাম
আশুগঞ্জে সরকার ঘোষিত লকডাউন চলছে” ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও বসেছে রমরমা সাপ্তাহিক হাট” চাঁদপুরে সর্বাত্মক লকডাউন কার্যকর করতে কঠোর অবস্থানে মাঠে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন ১৪ এপ্রিল আশুগঞ্জ গণহত্যা ও প্রতিরোধ দিবস -অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু জামালপুর জেলা বিএডিসি হিমাগার চুক্তিবদ্ধ চাষীদের কৃষক সম্মেলন গুনারীতলা ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যক্ষ সফিউল আলমের দলীয় মনোনয়ন পত্র জমা করোনার দ্বীতিয় ঢেউ, কেন্দুয়া বাসীকে সচেতন করলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহেল মাদারগঞ্জে ঝুপড়ি ঘরে থাকা সূর্য্য ভান বেগমকে পাকাঘরের ব্যবস্থা করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান জামালপুরে অগ্নিসন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মৌলবাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ জামালপুরে সাংবাদিক গড়ার কারিগর শফিক জামানকে স্মরণ মাদারগঞ্জের ৪ নং বালিজুড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী লিজু’র দলীয় মনোনয়ন পত্র জমা
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন
Notice :
মানব কথন. com এ আপনাকে স্বাগতম। সারাদেশব্যাপী জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে এবং প্রবাসে মানব কথন. com এর প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। মানব কথন. com এর প্রতিনিধি হতে info@manobkathan.com এ আপনার CV মেইল করুন। প্রয়োজনে যোগাযোগ করুনঃ ০১৭১২৯৬২০৫১ এই নাম্বারে।

নেত্রকোণার চাঞ্চলকর শাহীনুর হত্যা মামলার বাদী ও সাক্ষীর মাঝে সংঘর্ষ ও ভাংচুর, আহত ৪

জাহাঙ্গীর আলম, নেত্রকোণা প্রতিনিধি / ৮৭৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ৯ মে, ২০২০

নেত্রকোণার চাঞ্চল্যকর শাহীনুর আক্তার হত্যা মামলার বাদী ও সাক্ষীর মাঝে সংঘর্ষ ও ভাংচুর হয়েছে। শনিবার(৯মে) বিকালে পৌর শহরের সাতপাই রেলকলোনী এলাকায় শাহীনুর হত্যা মামলার বাদী ও সাক্ষীদের মাঝে এই ভাংচুর ও আহতের ঘটনা ঘটে।
সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, জেলার সাতপাই এলাকার রেলকলোনীর চাঞ্চল্যকর শাহীনুর আক্তার হত্যা মামলার বাদী সালাম, কালাম (শাহীনুর আক্তারের ভাই) তাদের নিজেদের কথা মতো স্বাক্ষ্য দেয়ার কথা বলে সাক্ষীদের। এরই জের ধরে সাক্ষীদের বাড়ি ঘর ভাংচুর ও আহত করে বাদী পক্ষের লোকজন। এতে হত্যা মামলার সাক্ষীপক্ষের আহত হয় ইসলাম উদ্দিন, ফজলুল হক সোহেল, শাহীন মিয়া অন্যদিকে বাদি পক্ষের বিল্লাহ, আশিক, আখি, কালাম আহত হয়। আহতরা নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনাস্থল নেত্রকোণা মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।


উল্লেখ্য, গত বছরের ১৮মে (শুক্রবার) সেহরীর সময় শাহিনুর পানি আনতে বাড়ির পাশের টিউবওয়েলে যায়। তখন পাশের একটি ঘরে ইদ্রিস মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়া (৩০) স্ত্রীকে সরিয়ে অন্য এক নারীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে লিপ্ত রয়েছে। এ ঘটনা দেখে শাহিনুর ওই যুগলের সঙ্গে কথা কাটাকাটিতে জড়ায়। এক পর্যায়ে সোহেলের ছুরিকাঘাতে শাহিনুরের মৃত্যু হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ