শিরোনাম
আশুগঞ্জে সরকার ঘোষিত লকডাউন চলছে” ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও বসেছে রমরমা সাপ্তাহিক হাট” চাঁদপুরে সর্বাত্মক লকডাউন কার্যকর করতে কঠোর অবস্থানে মাঠে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন ১৪ এপ্রিল আশুগঞ্জ গণহত্যা ও প্রতিরোধ দিবস -অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু জামালপুর জেলা বিএডিসি হিমাগার চুক্তিবদ্ধ চাষীদের কৃষক সম্মেলন গুনারীতলা ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যক্ষ সফিউল আলমের দলীয় মনোনয়ন পত্র জমা করোনার দ্বীতিয় ঢেউ, কেন্দুয়া বাসীকে সচেতন করলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহেল মাদারগঞ্জে ঝুপড়ি ঘরে থাকা সূর্য্য ভান বেগমকে পাকাঘরের ব্যবস্থা করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান জামালপুরে অগ্নিসন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মৌলবাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ জামালপুরে সাংবাদিক গড়ার কারিগর শফিক জামানকে স্মরণ মাদারগঞ্জের ৪ নং বালিজুড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী লিজু’র দলীয় মনোনয়ন পত্র জমা
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন
Notice :
মানব কথন. com এ আপনাকে স্বাগতম। সারাদেশব্যাপী জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে এবং প্রবাসে মানব কথন. com এর প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। মানব কথন. com এর প্রতিনিধি হতে info@manobkathan.com এ আপনার CV মেইল করুন। প্রয়োজনে যোগাযোগ করুনঃ ০১৭১২৯৬২০৫১ এই নাম্বারে।

মেলান্দহে দফায় দফায় সংঘর্ষ ॥ মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত-২৫

মো. শাহ্ জামাল / ১৯১১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০

জামালপুরের মেলান্দহে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৩দিন যাবৎ দফায় দফায় সংঘর্ষে মুক্তিযোদ্ধাসহ উভয় পক্ষের ুকমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শ্যামপুর ইউনিয়নের আমডাঙ্গা বাজারে।
জানা গেছে, ৩দন আগে আমডাঙ্গা গ্রামের ভটভড়ির ড্রাইভার আবুল কালামের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (১৮)’র সাথে হাজী রমজান আলীর ছেলে এনামুল হকের (২৫) জমির উপর দিয়ে ইটের গাড়ি নেয়াকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয়। এই ক্ষোভে এনামুল হক আমডাঙ্গা বাজারে আসলে জাহিদুলের লোকজন এনামুলকে মারপিট করে। এ নিয়ে প্রতিবেশি ডা. আলহাজ রমিজ উদ্দিনের ছেলে বীরমুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন (৬৫) কেয়ামত আলীর ছেলে দুলাল উদ্দিন (৫৫)বিষয়টি নিস্পত্তি করেন।
এরপরও জাহিদুলের লোকজন এনামুল হককে আবারো প্রহার করলে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। এই ঘটনাটি পূণ: নিস্পত্তির জন্য ২৯ জুন সন্ধ্যায় আমডাঙ্গা বাজারে দুলাল উদ্দিন (৫৫), মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন (৬৫) ও ছানোয়ার কবির (৪০), ফয়সাল মিয়া (৩৮), সাইফুল ইসলাম শাওন (৩৫), হাফেজ শেখ ফরিদ (৩৫)সহ গন্যমান্য ব্যক্তিরা আলোচনায় বসেন। আলোচনা চলাকালে দুলাল উদ্দিন ড্রাইভার জাহিদুলের পক্ষ নিয়ে উত্তেজিত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।
উভয় পক্ষের লোকজন মুখোমুখি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে বীরমুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনকে পিটিয়ে আহত করলে পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে হয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নজরুল ইসলাম (৪৮), আশরাফুল ইসলাম মন্টু (৫০), রনজু মিয়া (৩০), শাহীনুর ইসলাম (৩৫), রুকন উদ্দিন (২২), দেলোয়ার হোসেন (৪৮), এনামুল হক (২৮), আ: মান্নান (৫০), আনোয়ার হোসেন (২৫), রানী বেগম (৪৫), গুরুতর আহত হয়।
৩০ জুন বিকেল ৫টার দিকে দুলাল পক্ষের লোকজন; মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনের পক্ষের আসাদুজ্জামান সরকারকে আমডাঙ্গা বাজারে পেয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে নতুন করে সংঘর্ষের রূপ নেয়। সংঘর্ষ চলাকালে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া-ইটপাটকেল বিনিময় হয়। সংঘর্ষে মুকুল মাস্টার (৪৮), আসাদুজ্জামান সরকার (৫০)সহ উভয় পক্ষের আরো ৮/১০জন আহত হয়। আহত অবস্থায় তারা জামালপুরসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।
খবর পেয়ে মেলান্দহ ও ডিগ্রিরচর তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। মেলান্দহ থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম খানু জানান-এ ঘটনায় কোন পক্ষই মামলা দায়ের করেনি। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। #
মো. শাহ্ জামাল,
মেলান্দহে দফায় দফায় সংঘর্ষ ॥ মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত-২৫
জামালপুর সংবাদদাতা ॥ জামালপুরের মেলান্দহে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৩দিন যাবৎ দফায় দফায় সংঘর্ষে মুক্তিযোদ্ধাসহ উভয় পক্ষের ুকমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শ্যামপুর ইউনিয়নের আমডাঙ্গা বাজারে।
জানা গেছে, ৩দন আগে আমডাঙ্গা গ্রামের ভটভড়ির ড্রাইভার আবুল কালামের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (১৮)’র সাথে হাজী রমজান আলীর ছেলে এনামুল হকের (২৫) জমির উপর দিয়ে ইটের গাড়ি নেয়াকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয়। এই ক্ষোভে এনামুল হক আমডাঙ্গা বাজারে আসলে জাহিদুলের লোকজন এনামুলকে মারপিট করে। এ নিয়ে প্রতিবেশি ডা. আলহাজ রমিজ উদ্দিনের ছেলে বীরমুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন (৬৫) কেয়ামত আলীর ছেলে দুলাল উদ্দিন (৫৫)বিষয়টি নিস্পত্তি করেন।
এরপরও জাহিদুলের লোকজন এনামুল হককে আবারো প্রহার করলে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। এই ঘটনাটি পূণ: নিস্পত্তির জন্য ২৯ জুন সন্ধ্যায় আমডাঙ্গা বাজারে দুলাল উদ্দিন (৫৫), মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন (৬৫) ও ছানোয়ার কবির (৪০), ফয়সাল মিয়া (৩৮), সাইফুল ইসলাম শাওন (৩৫), হাফেজ শেখ ফরিদ (৩৫)সহ গন্যমান্য ব্যক্তিরা আলোচনায় বসেন। আলোচনা চলাকালে দুলাল উদ্দিন ড্রাইভার জাহিদুলের পক্ষ নিয়ে উত্তেজিত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।
উভয় পক্ষের লোকজন মুখোমুখি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে বীরমুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনকে পিটিয়ে আহত করলে পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে হয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নজরুল ইসলাম (৪৮), আশরাফুল ইসলাম মন্টু (৫০), রনজু মিয়া (৩০), শাহীনুর ইসলাম (৩৫), রুকন উদ্দিন (২২), দেলোয়ার হোসেন (৪৮), এনামুল হক (২৮), আ: মান্নান (৫০), আনোয়ার হোসেন (২৫), রানী বেগম (৪৫), গুরুতর আহত হয়।
৩০ জুন বিকেল ৫টার দিকে দুলাল পক্ষের লোকজন; মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনের পক্ষের আসাদুজ্জামান সরকারকে আমডাঙ্গা বাজারে পেয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে নতুন করে সংঘর্ষের রূপ নেয়। সংঘর্ষ চলাকালে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া-ইটপাটকেল বিনিময় হয়। সংঘর্ষে মুকুল মাস্টার (৪৮), আসাদুজ্জামান সরকার (৫০)সহ উভয় পক্ষের আরো ৮/১০জন আহত হয়। আহত অবস্থায় তারা জামালপুরসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।
খবর পেয়ে মেলান্দহ ও ডিগ্রিরচর তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। মেলান্দহ থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম খানু জানান-এ ঘটনায় কোন পক্ষই মামলা দায়ের করেনি। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ